শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ০৮:০৩ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
মৃত্যু কামনা করা কি বৈধ? ইমাম সাহেব তার স্ত্রীকে নিয়ে মসজিদের ভিতর দিয়ে যেতে পারবে কি? ইসলামের কাঠগড়ায় শায়খুল ইসলাম ঝাড়ফুঁক-তাবীয : একটি দালীলিক বিশ্লেষণ স্ত্রীর সাথে মিথ্যা বলা যায় কি? বীর্য কামরস স্রাব কি? কওমি মাদরাসা জাতির জন্য বিপদ জনক! নারীর ক্ষেত্রে অভিভাবক শর্ত কিনা? পর নারীকে বোন বলে ডাকা! সকল মুমিনরাই জাহান্নামে যাবে? একে সাক্ষীর বিয়ে কি যিনার অন্তর্ভূক্ত? স্ত্রীর হাত খরচা কি আলাদা দিতে হবে? সহবাসে অক্ষম ব্যক্তির জন্য হস্তমৈথুন কি বৈধ? যুবতী মেয়েকে চুমু দেওয়া কি বৈধ? আল্লাহ আমার সন্তান ছাড়া আর কাউকে দেখল না! সূফীবাদই কি প্রকৃত ইসলাম? আযানের বাক্য কয়টি? অশ্লীল চিন্তায় বীর্যপাত হলে? আসলেই কি সূরা ফাতেহা ছাড়া নামায হয় না? আপন বোনের সাথে স্বপ্নদোষ হলে?

নারীর গোপন মাসায়েল

Simana Chowdhury

ওয়েব থেকে।

জিজ্ঞাসাঃ যদি কারও ৭ দিন পরও ঋতুস্রাব চলে, তা হলে কি সে ৭ দিন পর থেকে নামায রোযা ধরতে পারবে কিনা?

 

সমাধানঃ যদি কোন নারীর সাধারণ অভ্যাস অনুযায়ী প্রতি মাসে ৭ দিন ঋতুস্রাব হয়। এবং কোন মাসে ৭ দিনের অতিরিক্ত রক্তস্রাব দেখা যায়, সেক্ষেত্রে তার করণীয় হলো, ১০ দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। এবং এদিনগুলোতে নামায রোযা ছেড়ে দিবে। যদি ১০ দিন পর্যন্ত রক্ত দেখা যায় এবং ১০ দিনে রক্ত বন্ধ হয়ে যায়, তা হলে ধরে নেয়া হবে তার আগের অভ্যাস পরিবর্তন হয়েছে। এবং পুরো ১০ দিনেই হায়েয বলে গণ্য হবে। আর যদি ১০ দিনের আগেই ঋতুস্রাব বন্ধ হয়ে যায়, তা হলে বাকি দিনগুলোর নামায রোযা কাযা করে নিতে হবে। এবং সেদিনগুলোর ঋতুস্রাবকে অসুস্থতা ধরা হবে।

 

উত্তর লিখনে

মুফতী মাহবুব হাসান

মুহাদ্দিস- মাদরাসায়ে হালিমাতুস সাদিয়া রা. ঢাকা।

মাদরাসায়ে খাতুনে জান্নাত রা. মহিলা মাদরাসা ঢাকা।

অনুগ্রহ করে পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Muftimahbub.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com