মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ ২০১৯, ০৭:৫৬ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ :
যে নারী অন্য নারীর প্রতি যৌন-আকর্ষণ অনুভব করে; তার চিকিৎসা কী? মঙ্গলবারে স্ত্রী সহবাস কি নিষেধ? হিন্দুদের খাবার খাওয়া স্বামী-স্ত্রী পরস্পরের লজ্জাস্থানে মুখ লাগানোর হুকুম কুরআন হাদীসে ভূতের অস্তিত্ব! হায়েয অবস্থায় জেনে শুনে স্ত্রী সহবাস! হায়েয অবস্থায় বিবাহ কি সহীহ নয়? সহবাসের সময় স্ত্রীর লজ্জাস্থানে তাকানো খোলা তালাকের বিনিময় গ্রহণ করা! বাবা মার দিয়ে দেওয়ার পর অন্যত্র পালিয়ে বিয়ে কি সহীহ? কিস্তিতে ক্রয় বিক্রয় হারাম? মহিলাদের কবর যিয়ারত কি হারাম? অযু ছাড়াও নামায পড়া যায়? স্বামীর পায়ের নিচে স্ত্রীর বেহেশত? শরীরে উলকী করা কি জায়েয? টাই পরে নামায হারাম ইশরাকের নামায পেট্রোল দ্বারা কাপড় ওয়াশ করা মহিলাদের জন্য তাবলীগ কতটা জরুরী আকীকার নাম বদলানো

সহবাসের সময় স্ত্রীর লজ্জাস্থানে তাকানো

জিজ্ঞাসাঃ স্বামী কি সহবাস করার সময় স্ত্রীর লজ্জাস্থান দেখতে পারবে? সহবাস করার সময় কথা বলার হুকুম কী?

সমাধানঃ সহবাসের সময় স্বামী-স্ত্রী পরস্পরের গোপনাঙ্গের দিকে তাকানো জায়েয আছে। হাদিসে এসেছে, বাহয বিন হাকীম তিনি তাঁর পিতা তিনি তাঁর দাদা থেকে বর্ণনা করেছেন, একদা তিনি বললেন, ‘হে আল্লাহর রসূল! আমাদের গোপনাঙ্গ কী গোপন করব, আর কী বর্জন করব?’ তিনি বললেন, احْفَظْ عَوْرَتَكَ ، إِلَّا مِنْ زَوْجَتِكَ ، أَوْ مَا مَلَكَتْ يَمِينُكَ ‘তুমি তোমার স্ত্রী ও ক্রীতদাসী ছাড়া অন্যের নিকটে লজ্জাস্থানের হেফাযত কর।’ সাহাবী বললেন, ‘হে আল্লাহর রসূল! লোকেরা আপোসে এক জায়গায় থাকলে?’ তিনি বললেন, যথাসাধ্য চেষ্টা করবে, কেউ যেন তা মোটেই দেখতে না পায়।’ সাহাবী বললেন, ‘হে আল্লাহর রসূল! কেউ যদি নির্জনে থাকে?’ তিনি বললেন, اللهُ أَحَقُّ أَنْ يُسْتَحْيَا مِنْهُ مِنَ النَّاسِ ‘মানুষ অপেক্ষা আল্লাহ এর বেশী হকদার যে, তাঁকে লজ্জা করা হবে।’(আবূ দাঊদ ৪০১৯, তিরমিযী ২৭৯৪)

উক্ত হাদিসের ব্যাখ্যায় হাফেয ইবন হাজর আসকালানী রহ. বলেন,

وَمَفْهُومُ قَوْلِهِ (إِلَّا مِنْ زَوْجَتك) يَدُلُّ عَلَى أَنَّهُ يَجُوزُ لَهَا النَّظَرُ إِلَى ذَلِكَ مِنْهُ ، وَقِيَاسه أَنَّهُ يَجُوزُ لَهُ النَّظَرُ

‘তুমি তোমার স্ত্রী ছাড়া’ (إِلَّا مِنْ زَوْجَتِكَ)-এর দ্বারা বোঝা যায়, স্বামী-স্ত্রী পরস্পরের গোপনাঙ্গের দিকে তাকানো জায়েয। যুক্তিও বলে, এটা জায়েয হবে। (ফাতহুল বারী ১/৩৮৬)

ইবন কুদামা আল মাকদেসী রহ. বলেন,

وَيُبَاحُ لِكُلِّ وَاحِدٍ مِنْ الزَّوْجَيْنِ النَّظَرُ إلَى جَمِيعِ بَدَنِ صَاحِبِهِ ، وَلَمْسُهُ ، حَتَّى الْفَرْجِ … ؛ وَلِأَنَّ الْفَرْجَ يَحِلُّ لَهُ الِاسْتِمْتَاعُ بِهِ ، فَجَازَ النَّظَرُ إلَيْهِ وَلَمْسُهُ ، كَبَقِيَّةِ الْبَدَنِ

স্বামী-স্ত্রী একে অপরের সমস্ত দেহের দিকে তাকানো, স্পর্শ করা, এমনকি যৌনাঙ্গের ক্ষেত্রেও বৈধ। কেননা, যৌনাঙ্গে মিলন হালাল। সুতরাং শরীরের অন্যান্য অঙ্গের মত তা দেখা ও স্পর্শ করাও জায়েয। (আল মুগনী ৭/৭৭)

হাশিয়াতুত দাসুকী (২/২১৫)-তে আছে,

وَحَلَّ لَهُمَا ، أَيْ لِكُلٍّ مِنْ الزَّوْجَيْنِ … نَظَرُ كُلِّ جُزْءٍ مِنْ جَسَدِ صَاحِبِهِ ، حَتَّى نَظَرُ الْفَرْجِ ، وَمَا وَرَدَ مِنْ أَنَّ نَظَرَ فَرْجِهَا يُورِثُ الْعَمَى مُنْكَرٌ لا أَصْلَ لَهُ

স্বামী-স্ত্রীর জন্য জায়েয একে অপরের সমস্ত দেহের দিকে তাকানো, এমনকি যৌনাঙ্গের দিকেও। বলা হয়,  স্ত্রীর গোপনাঙ্গের দিকে তাকালে স্বামীর চোখের জ্যোতি কমে যায়-একথার কোনো ভিত্তি নেই।

আরও বিস্তারিত জানতে দেখুন-

وينظر الرجل…. (ومن عرسه وأمته الحلال) (إلى فرجها) بشهوة وغيرها والأولى تركه (الدر المختار مع الشامى-6/364-366، طبع سعيد)

فينظر الرجل منهما وبالعكس إلى جميع البدن من الفرق إلى القدم ولو عن شهوة، لأن النظر دون الوطء الحلال (رد المحتار-6/366، طبع سعيد)

وكان ابن عمر رضى الله عنهما يقول: الأولى أن ينظر ليكون أبلغ فى تحصيل معنى اللذة الخ (رد المحتار-6/367، طبع سعيد)

وكذا فى الهندية-5/327-328)

ولا يكثر الكلام حالة الجماع فإنه إكثاره حينئذ يورث الخرس فى المتكلم أو الولد على ما سبق تقريره فيكره الكلام حل الجماع تنزيها (التيسير بشرح الجامع الصغير-1/176)

وكذالك لا يأتى بشيء من هذه الأذكار فى حال الجماع (تحفة الاحوذى-9/230)

يكره الكلام فى المسجد… وفى حالة الجماع (رد المحتار، كتاب الحظر والاباحة-6/418، طبع سعيد)

والله اعلم بالصواب

সোশ্যাল সাইটে শেয়ার করুন বন্ধুর সাথে...

One response to “সহবাসের সময় স্ত্রীর লজ্জাস্থানে তাকানো”

  1. Md abdur Razzak miah says:

    কোন কোন কারনে চেয়ারে বসে নামাজ পড়া যায়েজ, জুতা খুলে জুতার উপর পা রেখে চেয়ারে বসে নামাজ পড়া যাবেকি?

Leave a Reply

Your e-mail address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017-2018 Muftimahbub.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com