সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৩:৩৩ অপরাহ্ন

সর্বোশেষ:
সহবাসের জন্য মাসিক বন্ধ করার বিধান কি? পুরুষদের হাতে মেহেদী দেওয়া! হস্তমৈথুনকারীর উপর গোসল ফরয নয়? যৌনি পথে বীর্যপাত না হলে গোসল করতে হবে না? পাকা ফ্লোর পবিত্র করার নিয়ম ঋতুস্রাব মনে করে নামায ছেড়ে দেওয়া কমিউনিটি সেন্টারে বিয়ে কি বৈধ? জন্মবার্ষিকী কি শিরক? স্ত্রীর অনুমতি ছাড়া সফর বৈধ নয় কেন? হযরত ঈসা আ.কে অবৈধ সন্তান বলা মাহরামের সাথে বিয়ে অবৈধ হওয়ার রহস্য বাসর রাতে নববধূর সহবসে বারণ বিড়ি সিগারেট সেবন করা কি বৈধ? জবেহকৃত পশুর কোন কোন অংশ খাওয়া হারাম? একাধিক স্ত্রীর সাথে সহবাস কিভাবে করবে? ইসলামে কি পীর মুরিদ আছে? লা-মাযহাবীর পিছনে নামায পড়া পশ্চাদ দিক হতে স্ত্রীর যৌনাঙ্গে সহবাস করা খতনা উপলক্ষে অনুষ্ঠান করা কি বৈধ? অহংকার
একাধিক স্ত্রীর সাথে সহবাস কিভাবে করবে?

একাধিক স্ত্রীর সাথে সহবাস কিভাবে করবে?

যদি কারও একাধিক স্ত্রী হয়, তা হলে তাদের সাথে রাত্রিযাপন করা, পানাহার এবং কাপড়-চোপড় ইত্যাদি প্রদানের ক্ষেত্রে সমতা বজায় রাখা ওয়াজিব। তবে সহবাস ও মহব্বতের ক্ষেত্রে সমতা হওয়া ওয়াজিব নয়। কেননা এটি মানুষের ইচ্ছাধীন নয়। যেমন হাদীসে বর্ণিত আছে-

عَنْ عَائِشَةَ، قَالَتْ: كَانَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ يَقْسِمُ فَيَعْدِلُ، وَيَقُولُ: «اللَّهُمَّ هَذَا قَسْمِي، فِيمَا أَمْلِكُ فَلَا تَلُمْنِي، فِيمَا تَمْلِكُ، وَلَا أَمْلِكُ». قَالَ أَبُو دَاوُدَ: يَعْنِي الْقَلْبَ

হযরত আয়েশা রাযি. হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর স্ত্রীদের মধ্যে ইনসাফভিত্তিক (সবকিছুই) বন্টন করতেন এবং বলতেন, ইয়া আল্লাহ! আমার পক্ষে যা সম্ভব, আমি তা করেছি। আর যার মালিক আপনি, আমি নই (অর্থাৎ অন্তর) সে ব্যাপারে আমাকে দোষারোপ করবেন না। আবু দাউদ হাদীস নং ২১৩১

এ কথার উপর সবাই একমত, যে মহিলাকে বিবাহ করবে সে হয়ত কুমারি হবে অথবা অকুমারি হবে। যদি সে নববিবাহিতা মহিলা কুমারি হয়, তা হলে তার সাথে সাত রাত অবস্থান করবে। আর যদি অকুমারি হয়, তা হলে তার সাথে তিন রাত অবস্থান করবে। যেমন একথাটি আমরা হাদীস দ্বারা বুঝতে পারি-

عَنْ أُمِّ سَلَمَةَ، أَنَّ رَسُولَ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ لَمَّا تَزَوَّجَ أُمَّ سَلَمَةَ أَقَامَ عِنْدَهَا ثَلَاثًا، ثُمَّ قَالَ: «لَيْسَ بِكِ عَلَى أَهْلِكِ هَوَانٌ، إِنْ شِئْتِ سَبَّعْتُ لَكِ، وَإِنْ سَبَّعْتُ لَكِ سَبَّعْتُ لِنِسَائِي»

হযরত উম্মুল মুমিনীন সালামা রাযি. হতে বর্ণিত। রাবী বলেন, রাসূলূল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যখন উম্মে সালামাকে বিয়ে করেন, তখন তিনি তাঁর নিকট তিনরাত অবস্থান করেন। এরপর তিনি বলেন, এটা তোমার জন্য আমার পক্ষ হতে কম নয়, অবশ্য যদি তুমি চাও তবে আমি তোমার সাথে সাত রাতযাপন করব। আর আমি যদি তোমার সাথে সাত রাতযাপন করি, তখন আমার অন্যান্য স্ত্রীদের সাথেও আমাকে (সমতা রক্ষার্থে) সাত রাত থাকতে হবে। আবু দাউদ হাদীস নং ২১১৯

এখন প্রশ্ন হলো, ওই সাত অথবা তিন রাত অন্য স্ত্রীর সাথে রাতযাপনের ক্ষেত্রে পালার অন্তর্ভূক্ত হবে, নাকি ইহা পালার বহির্ভূত থাকবে, বন্টনের মধ্যে পরিগণিত হবে না, এ নিয়ে ইমামগণের মাঝে মতানৈক্য রয়েছে। তবে হানাফী মাযহাব মতে এ দিনগুলো ভাগের দিন থেকে বাদ পড়বে না, বরং এগুলোও পালার ভিতরে ধর্তব্য হবে। অর্থাৎ যদি নববিবাহিতা কুমারি স্ত্রীর সাথে সাত রাত যাপন করে, তা হলে পূর্বের স্ত্রীর সাথেও সাত রাত যাপন করতে হবে। আর অকুমারি নববধূর সাথে যদি তিনরাত যাপন করে, তা হলে পূর্বের স্ত্রীর সাথেও তিন রাত অতিবাহিত করতে হবে। দেখুন- ফাতহুল কাদীর ৩/৩০০

 

অন্য হাদীসে এসেছে-

عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ، عَنِ النَّبِيِّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ: «مَنْ كَانَتْ لَهُ امْرَأَتَانِ فَمَالَ إِلَى إِحْدَاهُمَا، جَاءَ يَوْمَ الْقِيَامَةِ وَشِقُّهُ مَائِلٌ»

হযতর আবু হুরায়রা রাযি. হতে বর্ণনা করেছেন যে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, যার দু’জন স্ত্রী আছে আর সে তার মধ্যে একজনের প্রতি অধিক ঝুঁকে পড়ে সে ব্যক্তি কিয়ামতের দিন অর্ধাঙ্গ অবশ অবস্থায় আসবে। আবু দাউদ হাদীস নং ২১৩০

অনুগ্রহ করে প্রচারের জন্য শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Muftimahbub.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com